চুল লম্বা করার উপায়

চুল লম্বা করার উপায় জেনে আপনি সহজেই আপনার চুল লম্বা, ঘন ও কালো রাখতে পারেন।

স্বাস্থ্য

চুল লম্বা করার উপায় জেনে আপনি সহজেই আপনার চুল লম্বা, ঘন ও কালো রাখতে পারেন। কারন চুল যে কোনো মানুষের সৌন্দর্যের অপরিহার্য শারীরিক উপাদান। এটা পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের ক্ষেএে আরো বেশি প্রযোজ্য। যুগে যুগে নারীদের লম্বা, ঘন, কালো চুলের রুপ বর্ননায় লেখা হয়েছে কতো গান আর কবিতা। তাই ঘন, কালো ও লম্বা চুল প্রায় সব বয়সী নারীর পছন্দ। নিয়মিত পরিচর্যা করলে এমন চুল পাওয়া সম্ভব। এর জন্য প্রতিদিন বিশেষভাবে চুলের যত্ন নিতে হবে।

চুলের পরিচর্যার ক্ষেএে যে জিনিসটি সর্বপ্রথম মাথায় আসে তা হলো তেল। ভালো মানের পুষ্টিগুন সম্পন্ন তেল চুলকে করে তোলে ঘন, কালো ও প্রানবন্ত। সপ্তাতে ২/৩ দিন গোসলের ২ ঘন্টা আগে তেল মালিশ করলে চুল হয় লম্বা ও মজবুত। তবে খেয়াল রাখতে হবে গোসলের সময় তেল যেন ভালো করে ধুয়ে ফেলা হয়। সেক্ষেত্রে ভালো মানের শ্যাম্পু ব্যাবহার করতে হবে। গোসলের পর চুলের তেল চিটচিটে ভাব চুলে উপকার না করে বরং আরো ক্ষতি করে।

চুল লম্বা করার উপায়

চুল নিয়মিত শ্যাম্পু দিয়ে ভালো করে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। বাজারে অনেক ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু পাওয়া যায়। তার মধ্যে থেকে যেটা চুলের জন্য উপযোগী সেই শ্যাম্পুটি বেছে নিতে হবে। চুলের জন্য উপযোগী শ্যাম্পু দিয়ে নিয়মিত মাথা ধুয়ে ফেললে চুল হবে লম্বা ও মসৃণ।

লেবু, পেঁয়াজ এবং মেথির রস উন্নত মানের পরিস্কারক হিসেবে কাজ করে। অতিরিক্ত খুশকি ও মাথায় ঘা এর কারণে চুল পড়ে যায় এবং চুলের গোড়া দূর্বল হয়ে যায়। এক্ষেত্রে লেবু, পেঁয়াজ বা মেথির রস চুলে নিয়মিত মেখে রাখতে হবে। চুল শুকিয়ে গেলে মাথা ভালো করে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলত হবে। এতে চুল পরা বন্ধ হবে এবং চুলের গোড়া মজবুত হবে।

চুলকে লম্বা ও ঘন করতে সঠিক খাদ্যাভ্যাস জরুরি। প্রতিদিনের খাবারে আমিষ ও আয়রন রাখতে হবে। এতে চুলের স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

প্রতিদিন নিয়মিত চুল আঁচড়াতে হবে এবং মাথা ম্যাসেজ করতে হবে। এতে চুলের গোড়ায় রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়। পরিস্কার চিরুনি ব্যাবহার করতে হবে। ময়লাযুক্ত চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ালে চুল পরে যায়। তাই চিরুনি সবসময় পরিস্কার রাখতে হবে।

বাজারের চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে চুলে যেনতেন শ্যাম্পু, তেল বা অন্যান্য রাসায়নিক দ্রব্য ব্যাবহার থেকে বিরত থাকতে হবে। একেক জনের চুলের ধরন একেক রকম। তাই চুলের ধরন বুঝে চুলের নিয়মিত যত্ন নিতে হবে। তাহলেই চুল হয়ে উঠবে লম্বা, ঘন, কালো ও মজবুত যা একটি মানুষকে আরো আকর্ষনীয় করে তুলবে।

আপনি আরো জানতে পারেন- ব্রেস্ট টিউমার এর লক্ষণ এবং চিকিৎসা । ব্রেস্ট টিউমার কেন হয় ?

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *