জরায়ু টিউমারের লক্ষণ

জরায়ু টিউমারের লক্ষণ ও করণীয়

স্বাস্থ্য

জরায়ু টিউমারের লক্ষণ ও করণীয়: বর্তমানে মেয়েদের শারীরিক সমস্যার মধ্য অন্যতম পরিচিত একটি অসুখ হল জরায়ু টিউমার । মেয়েদের জরায়ু টিউমারের রোগীর সংখ্যা যেন আস্তে আস্তে বেড়েই চলছে । বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ নারী এই জরায়ু সমস্যার ভোগেন ।

জরায়ু টিউমার সম্পর্কে বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার বলেছেন , যে সকল মহিলাদের জরায়ু টিউমার হয় তাদের সাধারণত ৩০ বছরের ঊর্ধ্বে । তারা আরো জানিয়েছেন জরায়ু টিউমার এর চিকিৎসা করলে বিপদের কোন ভয়

নেই এটা থেকে ক্যান্সার ছড়াতে পারেনা । তো আজকে আমরা জানবো জরায়ু টিউমারের কিছু সাধারণ লক্ষণ এবং কিভাবে খুব সহজে জরায়ু টিউমার প্রতিরোধ করা যায় । জরায়ু টিউমার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়বেন মাঝখানে বাদ দিলে ভালো ভাবে জানতে পারবেন না । তাই এই পোস্টটি পুরো পড়ে আপনি সচেতন হন এবং আপনার পরিবারসহ বন্ধু-বান্ধব আশেপাশের প্রতিবেশীদের জরায়ুর টিউমার সম্পর্কে সচেতন গড়ে তুলুন ।

জরায়ু টিউমারের লক্ষণ সমূহ ।

আমরা সকলে জানি যে প্রতিটা রোগের শুরুতে সাধারণ কিছু লক্ষণ প্রকাশ পায় সেই লক্ষণ দেখে আমরা কিছুটা আন্দাজ করতে পারি যে আমাদের শরীরে কি ধরনের অসুখ হয়েছে কিন্তু জরায়ু টিউমার এর ক্ষেত্রে তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো লক্ষণ দেখা দেয় না ।

তবে সাধারণ কিছু লক্ষণ আপনি বুঝতে পারবেন তা হল : অতিরিক্ত মাসিক হওয়া ও তলপেটে ব্যথা হওয়ার , দীর্ঘ সময় ধরে মাসিক হওয়া , টিউমার বড় হলে পেট ফুলে যেতে পারে , মূত্রথলিতে চাপ প্রয়োগের ফলে ঘন ঘন প্রস্বাব আসতে পারে , জরায়ুর মুখে টিউমার হলে সহবাসের সময় অস্বস্তি অথবা ব্যথা হতে পারে ,

অথবা সন্তান না হওয়ার অনেক বড় একটি মাধ্যম জরায়ু টিউমার , বর্তমান সময়ে অনেক মহিলা আছে যাদের জরায়ু টিউমারের কারণে অনেকদিন যাবত অনেক চেষ্টা করার পরেও সন্তান গর্ভধারণ করতে পারছেন না ।

জরায়ু টিউমারের চিকিৎসা ।

শরীর যেকোনো অসুখের জন্য প্রধানত চিকিৎসা হচ্ছে সচেতন থাকা এবং সাধারণ কিছু লক্ষণ দেখা দেওয়ার সাথে সাথে ভাল চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া সে ক্ষেত্রে জরায়ু টিউমারের সমস্যা ও ব্যতিক্রম নয় । যেহেতু জরায়ু টিউমারের ফলে সন্তান জন্মদানে অক্ষম হতে পারে তাই জরায়ু টিউমারের জন্য সাধারণ কিছু লক্ষণ দেখা দেওয়ার সাথে সাথে অলসতার না করে চিকিৎসাকে পরামর্শ নেওয়া অতি জরুরী ।

সঠিক সময় চিকিৎসা না নিলে জরায়ু টিউমার এবং স্তন টিউমার এর আকৃতি বড় হয়ে বড় ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে ।জরায়ু টিউমার এর ক্ষেত্রে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা একটি ভালো চিকিৎসা হতে পারে । অনেক রোগী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা গ্রহণের মাধ্যমে তাদের জরায়ুর টিউমার সমসাকে সমাধান করতে পেরেছে ।

হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার মাধ্যমে কোন ধরনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়াই খুব সহজে জরায়ু টিউমারকে নিরাময় করা যেতে পারে ।

আপনার মা আপনার পরিবারের কারো যদি জরায়ু টিউমার হয় তাহলে ভয় না পেয়ে এবং সময় নষ্ট না করে একবার হলেও ভালো হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে দেখতে পারেন । চিকিৎসা নিতে দেরি হলে টিউমারের আকার বড় হবে এবং পরবর্তীতে অপারেশন না করলে সে টিউমার ওষুধের দ্বারা নিরাময় করা প্রায় অসম্ভব হয়ে যায় ।

আরোও পড়ুনঃ ক্যান্সার প্রতিরোধ করে যেসব খাবার

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *