বিশ্ব ইজতেমা

বিশ্ব ইজতেমা ২০২৩ । শেষ মূহূর্তের প্রস্তুতি চলছে তুরাগ নদীর তিরে ।

ইসলাম

বিশ্ব ইজতেমা ২০২৩ । শেষ মূহূর্তের প্রস্তুতি চলছে তুরাগ নদীর তিরে । মহামারী করোনা ভাইরাসের জন্য গত দুই বছর ২০২১ ও ২০২২ সালে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়নি , শেষ ৫৫তম এস বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০২০ সালে । এই বছরের ২০২৩ সালে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হবে ১৩ই জানুয়ারি থেকে । ঢাকার টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে চলছে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি । দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আশা মুসল্লিরা স্বেচ্ছাসে কাজ করছেন বিশ্ব ইজতেমার আয়োজন করার জন্য । ইজতেমার কাজ অনেক অংশ শেষ হয়েছে । এই তীব্র শীতকে উপেক্ষা করেই চলছে বিশ্ব ইজতেমার কাজ ।

ইজতেমায় আসা মুসলমানদের জন্য একাধিক সাস্থ্য এবং পুলিশ টিম নিয়োজিত করা হয়েছে । মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য পুরো ইজতেমা ময়দান জুড়ে প্রায় সাত হাজার পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে । এছাড়া গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে প্রায় ৩ শতাধিক সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে । সিসিটিভির মাধ্যমে পুরো ময়দানের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পরিবেশ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে কন্ট্রোল রুমে বসে । দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা মুসলমানদের জন্য প্রায় ১৬০ একর জায়গায় বিস্তৃত ময়দানে সামিয়ানা টানানো হয়েছে । বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সদস্যরা তুরাগ নদীর উপরে অস্থায়ী সেতু নির্মাণ করেছে যাতে এই সেতুর উপর দিয়ে সকলে চলাচল করতে পারে । এছাড়া এই বিশাল ময়দানে খিত্তা ভিত্তিক মাইক এবং বৈদ্যুতিক তার বাতি টানানো হয়েছে । এ বছর প্রথম পর্বের ইজতেমায় প্রায় ৯০টি খিত্তা থাকবে , তার মধ্য এগারো বারো ৩২ ৩৭ ৭২,৭৩,৮৬ ও ৯১ নং খিত্তা সংরক্ষিত হিসেবে রাখা হয়েছে ।

দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা কবে থেকে শুরু হবে

এবারের ইজতেমার প্রথম পর্ব জুবায়ের পন্থীদের ১৩ জানুয়ারি শুরু হবে এবং ১৫ জানুয়ারি আখিরি মোনাজাতের মধ্য দিয়েই শেষ হবে ।

এরপর মাঝখানে চার দিন বিরতি দেওয়া হবে তারপর দ্বিতীয় পর্ব (মাওলানা সাদ পন্থী) মুসল্লিদের এস্তেমা ২০ জানুয়ারি শুরু হবে । বাইশে জানুয়ারি ৭ পন্থী দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে এই বছরের বিশ্ব ইজতেমা পরিসমাপ্তি ঘটবে ।

বিশ্ব ইজতেমা সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান ।

এখানে বিশ্ব ইজতেমার সম্পর্কে ছোট ছোট কিছু তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করা হলো ।

১. বিশ্ব ইজতেমা পৃথিবীর কোন দেশে অনুষ্ঠিত হয়?
উত্তরঃ বাংলাদেশে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়।
২. বিশ্ব ইজতেমার মূল উদ্দেশ্য কি?
উত্তরঃ ধর্মীয় কাজের জন্য মুসলমানদিগকে একত্রিত করা।
৩. ইজতেমা শব্দটি কোন ভাষা?
উত্তরঃ ইজতেমা শব্দটি আরবী ভাষা।
৪. ইজতেমা বলতে কি বুঝায়?
উত্তরঃ মুসলমানদের ধর্মীয় কাজে একত্রিত হওয়াকে বুঝায় ।
৫. তাবলীগ শব্দের অর্থ কি?
উত্তরঃ প্রচার বা প্রসার।
৬. আখেরী মোনাজাতের উদ্দেশ্য কি?
উত্তরঃ পরিবার, দেশ, জাতী ও বিশ্ববাসির শান্তির জন্য বিশেষ দোআ করা।
৭. ইজতেমায় অন্য কোন ধর্মের লোকেরা অংশগ্রহণ করে ?
উত্তরঃ সনাতন ধর্মের ।
৮. বিশ্ব ইজতেমায় মুনাজাতের নির্দিষ্ট সময় কখন?
উত্তরঃ সকাল ১০টা হতে জোহরের আগ পর্যন্ত।
৯. বিশ্ব ইজতেমায় কোন দেশের মানুষ বেশি আসে ?
উত্তরঃ পাকিস্তানের।
১০. ইজতেমায় প্যান্ডেল নির্মাণের শ্রমিক কারা কাজ করেন এবং কত পর্যন্ত সময় লাগে?
উত্তরঃ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা স্বেচ্ছা শ্রমিক কাজ করেন এবং কাজ শেষ হতে প্রায় ৩ মাসের অধিক সময় লাগে।
১১. বিশ্ব ইজতেমায় অর্থ যোগানদারী কারা?
উত্তরঃ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দেশী-বিদেশী ধর্মপ্রাণ বিত্তশালীরা।
১২. বিশ্ব ইজতেমার সময়কাল কত?
উত্তরঃ মাত্র ৩ দিন।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *