কাতার বিশ্বকাপ ২০২২

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এ কোরআন তেলাওয়াত করা কে এই বিস্ময়কর যুবক ঘানিম আল মুফতাহ?

লাইফস্টাইল

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এ কোরআন তেলাওয়াত করা কে এই বিস্ময়কর যুবক ঘানিম আল মুফতাহ? জমকানো আয়োজনের মাধ্যমে শুরু হয়ে গিয়েছে কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ । ফুটবলের ইতিহাসে অন্যরকম এক আয়োজন এর মাধ্যমে শুরু হয়েছে এবারের বিশ্বকাপ । আল-বায়াত স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিল চমকের পর চমক। সবচেয়ে বড় চমক ছিল কিংবদন্তি অভিনেতা মরগ্যান ফ্রীম্যানের উপস্থিতি। সেই পারফরম্যান্সকে বিশ্বের সকল মানুষের নজর কেড়েছে তার সঙ্গে ঘানিম আল মুফতাহ এর অংশগ্রহণ।

বিশ্বকাপের ৯২ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোরআন তেলাওয়াত করে সকলের নজর কেরেছেন ঘানিম আল মুফতাহ । বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা মরগান ফিম্যানের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি কুরআন শরীফের সূরা হুজুরাতের ১৩ নং আয়াত পাঠ করেন পাশাপাশি তিনি আয়াতটির ইংরেজি অনুবাদক পড়েন আয়াতের বাংলা অনুবাদ দেওয়া হলো । 

হে আল্লাহ, আমি তোমাদের কে সৃষ্টি করেছি এক পুরুষ ও এক নারী থেকে এবং বিভিন্ন জাতীয় গোত্রে বিভক্ত করেছি যেন তোমরা পরস্পরের সাথে পরিচিত হতে পারো তোমাদের মধ্যে সেই ব্যক্তি সবচেয়ে বেশি সম্মানীত যে বেশি আল্লাহ ভীরু নিশ্চয়ই আল্লাহ সর্বজ্ঞ এবং সব বিষয়ে অবগত

সূরা হুজরাত আয়াত ১৩

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এ কোরআন তেলাওয়াত কারী এই বিস্ময়কর যুবক ঘানিম আল মুফতাহ এর সংক্ষিপ্ত জীবন কাহীনি

 বিশেষ এক রোগে আক্রান্ত হয়ে জন্ম থেকেই দুটি পা নেই তার । এরপরও তিনি কাজ করছেন মানবতার জন্য , নিজ উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন । তার মত মানুষদের উপহার দিচ্ছেন হুইল চেয়া ।

২০০২ সালে ঘানিম আল মুফতাহ জন্মগ্রহন করেন । জন্মগত ভাবেই তিনি বিরল সিডিএস (কডাল রিগ্রেশন সিনড্রোম) রোগে আক্রান্ত ছিলেন । ঘানিমের জন্মের পূর্বেই এই রোগ ধরা পড়লে অনেকেই ঘানিমের মাকে গর্ভপাত করার কথা বলেন।

কিন্তু ঘানিমের মা রাজি না হয়ে এমন অবস্থায় সন্তানকে লালন-পালন করার সিদ্ধান্ত নেন। ঘানিমের মা তার বাবাকে বলেন, সন্তানের নিম্নাংশ নেই তো কি হয়েছে, আমি হবো তার বাম পা আর তুমি হবে তার ডান পা।  ঘানিমের কাছে বড় হয়ে ওঠাটা খুবই কঠিন ছিল, স্কুলের বন্ধদের দ্বারা সব সময় অপমানীত হয়েছেন।

কিন্তু তার মায়ের খুব চেষ্টায় ঘানিম এই সমস্যা থেকে বের হয়ে আসেন। ঘানিমের অক্লান্ত চেষ্টায় তাকে কাতার এর একজন সফল মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব হিসেবে গড়ে উঠতে সহায়তা করে। তারপরও নানান প্রতিকূলতা কাটিয়ে মোটিভেশনাল স্পিকার ইউটিউবার এবং মানব সেবী তিনি ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘানিমের রয়েছে ৩০ লক্ষেরও বেশি ফলোয়ার। ইংল্যান্ডের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করছেন ঘানিম আল মুফতাহ , সেই সাথে ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপের কাতার সরকার ২০২২ সালের একলাই এপ্রিল জ্ঞানী মাল মুক্তাকে ফিফার শুভেচ্ছা দুধ নিযুক্ত করার ঘোষণা করেন । ঘানিম আল মুফতাহ মাত্র সাত বছর বয়সে ২০০৯ সালে সেঞ্চুরি লিডার্স ফাউন্ডেশন কর্তৃক ( আনসার হিরো )  তথা অদৃশ্য বীর স্বীকৃতি লাভ করেন ।

আরো জানুন- ৯০০ কেজি মাংস নিয়ে কাতারে পৌছানোর পর আর্জেন্টিনা ফুটবল দল কি করেছিল?

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *