সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জ এ ৭৪৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে ইন্টারচেঞ্জ

বাংলাদেশ

বাংলাদেশের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের রাজশাহী বিভাগের অন্তর্গত সিরাজগঞ্জ জেলা । তাঁত শিল্প সিরাজগঞ্জ জেলাকে বিশ্বের কাছে পরিচিত করেছে । এছাড়া সিরাজগঞ্জে পর্যটক কেন্দ্র হিসেবে রয়েছে যমুনা সেতু এবং সৌন্দর্য ।

৭৪৩ কোটি টাকা পেয়ে সিরাজগঞ্জের নির্মিত হচ্ছে বিশ্ব বিখ্যাত ইন্টার চেঞ্জ । সিরাজগঞ্জেরাহাটি কমরুল এলাকায় পাইলট পাইলিং এর মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মানের প্রকল্প এন্টার চেঞ্জ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে । বাংলাদেশের সড়ক বিভাগ দূর্ঘটনা লাগবের জন্য এই প্রথম এই প্রকল্প যুক্ত করছে ।

এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হওয়ার পর সিরাজগঞ্জ রোড এলাকার মানুষসহ বাস চালক এবং বাসে চলাচল যাত্রীরা অনেক উপকৃত হবে । এখান দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন সহজেই রাস্তা পরিবর্তন করতে পারবে সাথে সাথে দুর্ঘটনার হার অনেক কমে যাবে এবং যানজট অনেক আর কমে যাবে , এর ফলে বাসে চলাচল করা যাত্রীদের সময় নষ্ট হবে না। থাক থাকছে বাস যাত্রী ও চালকদের জন্য অত্যাধুনিক বিশ্রামাগার । দীর্ঘ ভবনের ক্লান্তি এ রাতে তারা এখানে যাত্রা বিরতি দিয়ে বিশ্রাম নিতে পারবে । ইতিমধ্য মাটিপাড়া টু পাইলিং এর কাজ শুরু হয়ে গেছে । এই প্রকল্পটি আনুমানিক ২০২৪ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্য শেষ হওয়ার কথা রয়েছে ‌ ।

সিরাজগঞ্জে ৭৪৩ কোটি টাকায় নির্মিত হচ্ছে ইন্টারচেঞ্জ। বাংলাদেশের উত্তর ও দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলের ২২ জেলার বঙ্গবন্ধু শেখ হয়ে রাজধানীর সাথে সড়ক-ঝোতাযোগের গুরুত্বপূর্ণ স্থান হচ্ছে সিরাজগঞ্জের হাটে কমরুল গোল চত্বর । বাংলাদেশের অবকাঠামন মধ্য সিরাজগঞ্জের হাটে কমিটির প্রথম নির্মিত হচ্ছে এই আন্তর্জাতিক মানের ইন্টারচেঞ্জ ।

ইন্টারচেঞ্জ কি ?

ইন্টারচেঞ্জ বা ইনটেলিজেন্ট ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম হলো একটি উন্নত প্রকল্প , যার প্রধান লক্ষ্য হলো পরিবহন ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভিন্ন ভবিষ্যৎ টেকনোলজি ব্যবহার করে রাস্তায় চলাচল যাত্রীদের এবং যানবাহন চালকদের নিরাপ ত্তা এবং স্মার্ট চলাচলের ব্যবস্থা করা ।

এই প্রযুক্তির মাধ্যমে সেখানে একাধিক রাস্তার মিলন স্থল সেখানে সঠিকভাবে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করা এবং ক্যামেরা ব্যবহার করে প্রতিটা যানবাহনের গতিসীমা চিহ্নিত করা ।

ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে সিরাজগঞ্জ এর আন্তর্জাতিক মানের প্রকল্প ইন্টারচেঞ্জ নির্মাণের কাজ

উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার সিরাজগঞ্জের হাঁটি কমরুল সেখান দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার ছোট বড় যানবাহন এবং মানুষ চলাচল করে । এ কারণে এখানে প্রতিনিয়ত যানজট লেগে থাকে । যার ফলে জনগণ এবং বাস চালকদের অনেক সমস্যায় পড়তে হয় বিশেষ করে দুই ঈদে আরও বেশি যানজট লাগে তখন মানুষ সময়মতো তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে না । এই দুর্ভোগ কমাতেই মহাসড়কটির সালের উন্নতি প্রকল্পের পাশাপাশি ইন্টারচেঞ্জ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক ও জনপদ বিভাগ । এই আন্তর্জাতিক মানের ইন্টারচেঞ্জ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হওয়ার পর সিরাজগঞ্জের হাটি কুমরুল এলাকার এক কিলোমিটার আগ থেকেই ভাগ হয়ে যাবে বিভিন্ন জেলার যানবাহন পথচারীদের জন্য থাকবে ফ্লাইওভার । শুধু যানবাহন এর জন্যই রাস্তা নয় বরং ধিরগতি পরিবহনের জন্য থাকছে আলাদা লিংক রোড এবং মানুষের পথ চলাচলের জন্য থাকছে আলাদা রাস্তা ।

সিরাজগঞ্জ এ ৭৪৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে ইন্টারচেঞ্জ

উত্তরবঙ্গের বাস ড্রাইভাররা জানিয়েছেন যমুনা সেতু পাওয়ার হওয়ার পর এলাকায় যানজটের কারণে মাঝে মাঝেই দীর্ঘ সময় বসে থাকতে হয় যার ফলে যাত্রীরা অনেক বিরক্ত হয় । এই ইন্টারচেঞ্জ নির্মাণ হওয়ার পর আমরা অল্প সময়ে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করতে পারব এবং যাত্রীরা সময়মতো তার গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবে ।

সিরাজগঞ্জের গোল চত্বর হাট এলাকার প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেন প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে যানবাহন চলাচলের গতিশীলতা আসবে উত্তরবঙ্গের সড়কে ।

ইতিমধ্যেই পাঁচ লিয়া এলাকায় পাইলিং এর কাজ এবং মাটির বরফের কাজ শুরু হয়েছে ঠিকাদার খুব দ্রুত কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে । তবে জমি অধিগ্রহণ নিয়ে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে তারা কোন সমস্যা না হলে 2024 সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে আশা করা যায় ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *